স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করে দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করে ফেইসবুক লাইভে মাদকাসক্ত স্বামী

শরীয়তপুর প্রতিনিধি
শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া গ্রামে নিজ স্ত্রী আমেনা বেগমকে ধারালো দা দিয়ে বসতঘরে কুপিয়ে হত্যা করে সে দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করে ফেইসবুক লাইভে আসেন মাদকাসক্ত স্বামী নজরুল ইসলাম মাদবর । এ ঘটনার সংবাদ পেয়ে ডামুড্যা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে কিলার নজরুল ইসলাম মাদবরকে গ্রেফতার করেছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড় ৯টার দিকে ইসলামপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণপাড়া গ্রামে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১৫ বছর আগে ইসলামপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত হোসেন মাদবরের ছেলে নজরুল ইসলাম মাদবরের সঙ্গে একই ইউনিয়নের গঙ্গেসকাঠি গ্রামের মৃত আজিদ আলী মাদবরের মেয়ে আমেনা বেগমের বিয়ে হয়। এর পরই স্বামীর নির্যাতন শুরু হয় আমেনা বেগমের উপর। এই দম্পতির নয়ন মাদবর নামে ১০ বছর বয়সী একটি ছেলে ঢাকায় মাদ্রাসায় পড়াশুনা করে। নজরুল ইসলাম মাদবর মালয়েশিয়ায় রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন। সেখানে ছাদ থেকে পড়ে তার দুই পা ভেঙে যায়। সুস্থ হয়ে দেশে চলে আসেন। স্ত্রীসহ তিনি নিজ বাড়িতেই থাকতেন। হত্যাকান্ডের সময় নজরুল ইসলামের একতলা ভবনের কক্ষে তার স্ত্রী ছাড়া অন্য কেউ ছিল না। কথা কাটাকাটির জের ধরে তার মাদকাসক্ত স্বামী নজরুল ইসলাম মাদবর ধারালো দা দিয়ে স্ত্রীর শরীরের বিভিন্ন জায়গায় কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে এবং গলা কেটে হত্যা করে। হত্যার পর ফেইসবুক লাইভে আসেন নজরুল ইসলাম। লাইভে তার স্ত্রী আমেনা বেগমকে খাটের ওপর তোশক দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় দেখান। এক পর্যায়ে তাকে গাইতে শোনা যায়, ‘আমার খাইয়া, আমার পইরা ডুব দিছে ভাই অন্যজনরে’। লাইভ দেখার পর বিষয়টি জানাজানি হলে নজরুল ইসলামের মা আনার কলি (৮০), ভাগনি সোহাদি আক্তার (২৫), ছোট ভাইয়ের স্ত্রী আছিয়া বেগমসহ (২৩) প্রতিবেশীরা দরজা পেটাতে থাকেন। কিন্তু নজরুল ইসলাম দরজা খোলেননি। পরে দুপুরের দিকে পুলিশ এসে দরজা খুলে তাকে গ্রেফতার করে এবং আমেনা বেগমের লাশ উদ্ধার করে। বাড়ির প্রতিবেশী আব্দুল মজিদ মাদবর বলেন, আমেনা খুবই ভালো একজন নিরীহ নারী ছিলেন। নজরুল ইসলাম মাদকাসক্ত ছিল। শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার এস এম আশরাফুজ্জামান বলেন, স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে নজরুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। লাশ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *